২৮শে জানুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :

চৌদ্দগ্রামে সীমানা প্রাচীর নিয়ে বিরোধে হামলা-লুটপাট, গ্রেফতার-১

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে সীমানা প্রাচীর দখল নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে অতর্কিত হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় হারুনুর রশীদ ওরফে বাবুল (৫৬) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত হারুন উপজেলার গুণবতী ইউনিয়নের দশবাহা গ্রামের মৃত মকবুল আহমদের ছেলে। গত মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
চৌদ্দগ্রাম থানায় দায়েরকৃত মামলা সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে দশবাহা গ্রামের আকতার হোসেনের সাথে হারুনুর রশীদ গংয়ের জায়গা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এনিয়ে হারুনুর রশীদ গং বাদী পক্ষের লোকজনের উপর দীর্ঘদিন ধরেই নানা প্রকার হুমকি-ধমকি সহ আতংক ছড়ানোর চেষ্টা করতো এবং একই কারণে উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় সময়ই বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে আসছিল। এক পর্যায়ে গত শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে হারুনুর রশীদ গং দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে আকতার হোসেনের পরিবারের উপর অতর্কিতভাবে হামলা চালায়। হামলায় আকতার হোসেন ও তাসলিমা আক্তার সহ দুইজন আহত হন। এক পর্যায়ে হামলাকারীরা আকতার হোসেনের ঘরের সাড়ে ছয়লাখ টাকা মূল্যের আসবাবপত্র ভাংচুর, একটি মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ ও দশ ভরি স্বর্ণালঙ্কার সহ নগদ আড়াই লাখ টাকা লুটে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় আকতার হোসেন বাদি হয়ে হারুনুর রশীদসহ ছয়জনের নাম উল্লেখ করে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং (১৭, তারিখ: ২৭/০৯/২০২০ইং)।
উল্লেখ্য, ভূমি সংক্রান্ত বিরোধের কারণে হারুনুর রশীদ গংদের সাথে আকতার হোসেনের পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে মামলা-মোকদ্দমা চলে আসছিল। চলমান সে মামলায় ২০০৪ সালে ২২ আগস্ট কুমিল্লা জেলা জর্জকোর্টের রায় আকতার হোসেনের পরিবারের পক্ষে আসে। পরবর্তীতে বিবাদী পক্ষ (হারুন গং) ওই রায়ের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আপিল করে। ২০০৯ সালের ১৯ জানুয়ারি প্রদত্ত হাইকোর্টের রায়ও মামলার বাদী আকতার হোসেনের পরিবারের পক্ষে আসে। এরপর বিবাদী পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে মহামান্য সুপ্রীমকোটের তৎকালীন প্রধান বিচারপতি এম এম রুহুল আমিন, আপিল বিভাগের জৈষ্ঠ্য বিচারপতি ফজলুল হক ও এস এ এন এন রহমানের যৌথ বেঞ্চে মামলাটির পূর্ণাঙ্গ শুনানী হয়। শুনানী শেষে ২০০৯ সালের ৯ ডিসেম্বর আপিল বিভাগের রায়টিও মামলার বাদী আকতার হোসেনের পরিবারের পক্ষে আসে। একই সাথে বিবাদী পক্ষের করা আপিলটিও খারিজ করে দেয় মহামান্য সুপ্রীমকোর্ট।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আদালতের রায়ের কাছে বারবার পরাজিত হয়ে ও সম্মত্তির লোভে বিবাদীপক্ষ আরো বেপরোয়া হয়ে ওঠে। যার কারণে নানা অজুহাতে বাদীপক্ষের বাড়ীঘর ও লোকজনের উপর বিভিন্ন সময় হামলার ঘটনা ঘটায়। স্থানীয়দের মুখে হারুনুর রশীদ বাবুল গংয়ের বিরুদ্ধে নানান অভিযোগের ফিরিস্তির কথা শোনা যায়।

সবুজ বাংলা নিউজ পরিবার

জিয়াউর রহমান হায়দার

প্রকাশক ও সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৭ ৪৫০০৯৬

মোঃ নাজমুল হক

নির্বাহী সম্পাদক
মোবাইল: ০১৭১০ ৯১৩৩৬৬

রানা মিয়া

সহযোগী সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮৮১ ১৪১৮৬৬